“ব্যক্তিগত” কাজে আছেন বিধায়ক শোভন, বেহালা পূর্বের “দিদিকে বলো” কর্মসূচি দেখবেন কাউন্সিলররা

কলকাতা, বৃহস্পতিবার

বেহালা পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রে দিদিকে বলো কর্মসূচির সূচনা করলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বেহালা পূর্ব কেন্দ্রের বিধায়ক শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অনুপস্থিতিতেই এই কর্মসূচির সূচনা করলেন বেহালা পশ্চিমের বিধায়ক দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ইতিমধ্যেই এই কর্মসূচিতে ভালো সাড়া পাওয়া গেছে। পার্থ চট্টোপাধ্যায় আরও জানিয়েছেন, রাজ্যের মানুষ তাদের মতামত জানাতে পারছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই বেহালা পশ্চিমে এই কর্মসূচি শুরু হয়েছে। এবার বেহালা পূর্বতে এবার আমার এটা শুরু করলাম। দলের যেমন নির্দেশ আসবে সেই মতো কাজ করতে হবে বেহালা পূর্বের জনপ্রতিনিধিদের। পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, মানুষের কাছে আমাদের পুর প্রতিনিধিরা যাবেন, তাদের সমস্যার কথা শুনবেন। সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করবো আমরা বেহালা পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রতে। একই সঙ্গে তিনি বলেন, এখান থেকেই প্রথম নির্বাচিত হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেটা এখানের মানুষ ভুলে যাননি।

শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অনুপস্থিতি নিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ব্যক্তিগত কারণেই এখনকার বিধায়ক থাকতে পারছেন না। আমরা চাই পরবর্তীকালে তিনি দলের কাজে আবার যোগ দেবেন। তবে এই কর্মসূচি নিয়ে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে আলাদা করে আমন্ত্রণ জানানোর কিছু নেই বলেও জানিয়েছেন দলের মহাসচিব।

পাল্টা কর্মসূচি হিসেবে চিন্তন শিবির শুরু করতে চলেছে বিজেপি, সেই পরিপ্রেক্ষিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন,
বিড়াল কে বাঘ করার চেষ্টা করে লাভ নেই। আমরা মানুষের পাশে ছিলাম মানুষের পাশে থাকবো। মানুষের শক্তিতে আমরা বিশ্বাসী, পেশী শক্তিতে আমরা বলিয়ান নয়।

দিদি কে বলো কর্মসূচির সাংবাদিক সম্মেলনে ছিলেন তৃণমূল সাংসদ মালা রায়। তিনি জানিয়েছেন, রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় যেভাবে এই কর্মসূচি হচ্ছে সেই ভাবে এখানে শুরু করা হচ্ছে। আগে অনেকক্ষেত্রেই মানুষ তাদের কথা জানতে পারতো না, কিন্তু এই কর্মসূচির মাধ্যমে সরাসরি জানানো যাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

Be the first to comment on "“ব্যক্তিগত” কাজে আছেন বিধায়ক শোভন, বেহালা পূর্বের “দিদিকে বলো” কর্মসূচি দেখবেন কাউন্সিলররা"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*


Skip to toolbar