জাতীর উদ্দেশ্যে ভাষণে জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখের মানুষকে দিন বদলের স্বপ্ন দেখালেন প্রধানমন্ত্রীর

দিল্লি, বৃহস্পতিবার,

জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ করা নিয়ে জাতীর উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জাতীর উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষকে নতুন স্বপ্ন দেখালেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন, ৩৭০ ধারার মাধ্যমে কেবল মাত্র কাগজে কলমে সুযোগ সুবিধা পেতেন জম্মু কাশ্মীরের মানুষ। কিন্তু আসল সুবিধা থেকে বঞ্চিত হতেন তারা। কিন্তু এবার দেশের অন্য রাজ্যের মতই এগিয়ে যাবে জম্মু কাশ্মীর এবং লাদাখ। শ্রমিক, সংখ্যালঘু মানুষেরা যে সুবিধা পায় এবার এখানের এখানের মানুষেরাও এই সুবিধা পাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। জম্মু কাশ্মীরের তরুণ প্রজন্মের মানুষের সামনে কর্মসংস্থানের নতুন দিশা উন্মোচিত হবে বলেও এদিন দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী। আইআইটি, আইআইএম এর মতো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জম্মু ও লাদাখের মাটিতে তৈরি হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন প্রধানমন্ত্রী। একই সঙ্গে তিনি বলেন, কেন্দ্রের একধিক প্রকল্প রয়েছে যার সুবিধা দেশের নানা প্রান্তের মানুষ পায় কিন্তু সেই সব সুবিধা এতদিন পেতেন না জম্মু কাশ্মীরের মানুষ। এবার কেন্দ্র তাদের কাছে দ্রুত গতীতে সেই সুবিধা পৌঁছে দেবে বলে আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, জম্মু কাশ্মীরের পুলিশ দেশের বাকি অংশের পুলিশের মতই সব রকমের সুযোগ সুবিধা পাবে। দীর্ঘ দিন ধরে জম্মু কাশ্মীরের পুলিশ এই দাবি তুলে ধরছে। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগামী কিছু দিনের মধ্যেই জম্মু কাশ্মীরে কর্ম সংস্থানের নতুন দিশা উন্মোচিত হবে। সেখানে যুবক যুবতীরা নতুন জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখ তৈরির কাজে হাত লাগাতে পারবেন। সরকারি সংস্থার পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাকেও উৎসাহিত করা হবে নতুন শিল্প স্থাপনের জন্য।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জম্মু-কাশ্মীরের বর্তমান অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সেখানকার মানুষ উদগ্রীব হয়ে আছে। সামান্য কিছু মানুষের জন্য আর পাকিস্তানের মদতে সন্ত্রাসবাদ মাথা তুলে দাঁড়াতে পেরেছে সেখানে কিন্তু জম্মু-কাশ্মীরের শান্তিপ্রিয় মানুষের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সন্ত্রাসবাদ মুক্ত হবে জম্মু-কাশ্মীর। সন্ত্রাসবাদের কারণে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করতে পারে না। শুধুমাত্র তাই নয় যারা দেশভাগের পর পাকিস্তান থেকে ভারতে এসেছে তারাও নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করতে পারে না। তাদের ভোটদানের অধিকার দেওয়া কেন্দ্রের কর্তব্য বলে এদিনের ভাষণে বলেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতীর উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে জম্মু কাশ্মীরের মানুষকে আগাম ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী। তাদের ঈদ পালনে যাতে কোন সমস্যা না হয় সেই দিকে সরকারের নজর থাকবে বলেও জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, কাজের সুবাদে যারা জম্মু কাশ্মীরের বাইরে থাকেন তারা যাতে ঈদের সময় নিজের বাড়িতে ফিরে আসতে পারে তার জন্য সব রকম সহযোগিতা করবে কেন্দ্র।

Be the first to comment on "জাতীর উদ্দেশ্যে ভাষণে জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখের মানুষকে দিন বদলের স্বপ্ন দেখালেন প্রধানমন্ত্রীর"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*


Skip to toolbar