হাজরা মোড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাথায় বাঁশের আঘাত, এই মামলা চালাতে অনীহা রাজ্যের

কলকাতা, বুধবার

হাজরা মোড়ে তৎকালীন বিরোধী নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাথায় বাঁশ দিয়ে আঘাত করেছিলেন লালু আলম। সেই ঘটনার মামলা আর এগিয়ে নিয়ে যেতে চায় না রাজ্য। বুধবার আলিপুর আদালতে বিচারপতিকে মামলার সরকার পক্ষের আইনজীবী জানিয়েছেন, এই মামলা ৩০ বছর ধরে চলছে। মামলার যারা প্রত্যক্ষদর্শী তাদের অনেকেই মারা গেছেন। একই সঙ্গে রাজ্য সরকারের আইনজীবী জানিয়েছেন, এই মামলা চালালে আর কোন “ফ্রুটফুল রেজাল্ট” পাওয়া যাবে না। বুধবার সন্ধ্যায় সাংবাদিক সম্মেলন করে এই কথা জানিয়েছেন রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক। তিনি জানিয়েছেন বুধবার আদালতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাক্ষ্য নেওয়ার কথা ছিল। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাক্ষ্য নেওয়ার কথা ছিল। শেষবার শুনানির সময় এই কথাই জানানো হয় বলে দাবি করেন মলয় ঘটক। কিন্তু আদালতে কোনো ব্যবস্থা করা হয়নি ভিডিও কনফারেন্সের।

১৯৯০ এর ঘটনার পর থেকে ৯৪ সালে প্রথমবার স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। বুধবার সেই স্বাক্ষ্য গ্রহণ পর্ব সমাপ্ত করলো আদালত। এর পর ৩১৩ ধারা অনুযায়ী আদালতের পরবর্তী পর্ব চালনো হবে এই মমলার। তারপর দুই পক্ষের আইনজীবীর বক্তব্য শোনার পর মামলার রায় শোনাবেন বিচারপতি।

বিধানসভায় দাঁড়িয়ে রাজ্যের স্বার্থে বাম-কংগ্রেস দুই দলের কাছে এক সঙ্গে হাঁটার বার্তা দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার বামেদের বিরুদ্ধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দীর্ঘ দিনের যে অভিযোগ সেই মামলা থেকেই নিজেদের সরিয়ে নেওয়ার ইঙ্গিত। রাজনৈতিক দিক থেকে এই বিষয় যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

Be the first to comment on "হাজরা মোড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাথায় বাঁশের আঘাত, এই মামলা চালাতে অনীহা রাজ্যের"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*


Skip to toolbar